ওয়াইফাই হ্যাক করা কি সম্ভব? ওয়াইফাই হ্যাক করার উপায়

0
66

আজকে ওয়াইফাই হ্যাক সম্পর্কে কিছু তথ্য আপনাদের কাছে শেয়ার করব। শুরুতেই বলে রাখছি যারা ওয়াইফাই হ্যাকিং শিখতে আসেন তাহলে দয়া করে ব্লগ পোষ্টি ছেড়ে চলে জান।

এই পোষ্টে আমি ওয়াইফাই হ্যাক দেখাব না তবে ওয়াইফাই সম্পর্কে কিছু Knowledge আপনাদের কাছে শেয়ার করার চেষ্টা করব আদৌ কি ওয়াইফাই হ্যাক করা যায় কি না এবং করা গেলেও কিভাবে করা যায় আর যদি না করা যায় তবে কেন করা যায় না সেই বিষয়গুলো আপনাদের বলব।

শুরুতেই একটা Warning দিয়ে রাখি গুগল প্লে স্টোরে আপনারা অনেকেই সার্চ করে দেখবেন যে ওয়াইফাই হ্যাকিং এর অনেক অনেক অ্যাপ আছে।

যেগুলো ভেবে থাকেন এগুলো দিয়ে আপনারা কাজ করতে পারবেন এবং অনেকে ডাউনলোড করে সেগুলো দিয়ে চেষ্টা করে কিন্তু হয় না। এর কারণ হচ্ছে এগুলো আসলে ভুয়া এবং এগুলো দিয়ে কোনো কাজ হয় না, এরা শুধু টাকা ইনকাম করার জন্য এই Software গুলো বানিয়ে।

এর কারণে আপনের বিভিন্ন ধরণের ক্ষতি হতে পারে আপনের মোবাইলের সিকিউরিটি ভেঙ্গে যেতে পারে। তাই দয়া করে এই অ্যাপ গুলো ইন্সটল করবেন না এগুলোতে অনেক সময়ে Virus থাকতে পারে অনেক টাইপের প্রব্লেম হতে পারে। এই অ্যাপ গুলো কখন ব্যবহার করবেন না কারণ এগুলো দিয়ে আদৌ হ্যাকিং করা সম্ভ্যব না।

এখন আসি আসলেই হ্যাকিং করা সম্ভব কি না?

এই কথার উত্তরটা আসলে এক কথায় দেওয়া যায় না Because ওয়াইফাই হ্যাক করা যায় এর জন্য আপনাকে সেই লেভেলের হ্যাকিং নলেজ লাগবে।

আপনি একজন এক্সপার্ট,অ্যাডভানস হ্যাকার যদি হন তাহলে আপনি Wi-Fi hack করতে পারবেন। সেক্ষেত্রেও অনেক ঝামেলা আছে সেগুলো নিয়ে আমরা পরে কথা বলব।

এখন অনেকেই বলতে পারেন যে আমার বন্ধুত ওয়াইফাই হ্যাক করে ফেলেছে এক মিনিটের মধ্যে বেশি হ্যাকিং নলেজ ছাড়াই। এটা কেন হয়, কিভাবে করা যায়? সেটা এখন বলছি, তার আগে আপনাকে ওয়াইফাই সিকিউরিটি  গুলো বুঝতে হবে।

আরো পড়ুনঃ ওয়াইফাই হ্যাক করার সফটওয়্যার

প্রাথমিক ভাবে যে সিকিউরিটিটা ছিল সেটা হচ্ছে WEP যেটা অনেক নরমাল ছিল যার কারণে ফ্রি সফটয়্যার দিয়েও হ্যাক করা যেত।

এর পরে যেটায় WPA-WPA2 এই নামের সিকিউরিটি গুলো থাকে ওগুলো কিন্তু হ্যাক করা যায় না কারণ এগুলোর সিকিউরিটি লক  অনেক হার্ড থাকে একদমি অনেক কঠিন কিন্তু আপনি যদি হ্যাক করেনও আপনি পাসওয়ার্ড বেড় করতে পারবেন না শুধু মোবাইলে কানেক্ট থাকবে।

কিভাবে আপনার ওই বন্ধু পাঁচ মিনিটের মধ্যে ওয়াইফাই হ্যাক করল?

সেটা হচ্ছে যে ভিকটিম আছে সেই ভিকটিমের রাউটারে যদি কোনো উইটনেস থাকে একটা উইটনেস হচ্ছে WPS, এটা প্রত্যেক রাউটারের মধ্যে এনাবল করা থাকে, এটার উদ্দেশ্যটা হচ্ছে আপনি যদি কোনো বন্ধুকে আপনার রাউটারে সংযোগ  করতে চান কিন্তু ওয়াইফাইর যে প্রকৃত পাসওয়ার্ড  আছে সেটা বলতে চাচ্ছেন না।

তাহলে কিভাবে সংযোগ করা যায় এটার জন্যই হচ্ছে WPS, এটা রাউটারের পেছনে লেখা থাকে ওই key টা দিয়ে তাকে কানেক্ট করে দিতে পারবেন পাসওয়ার্ডটা না জানিয়ে।

আবার রাউটারের পেছনে একটা বাটন আছে যেটাকে WPS বাটন বলে এটা আপনি চেপে দিলেও কাউকে কানেক্ট করতে পারেন। এখন এই key টা এক থেকে সাত বা আট ডিজিটের মধ্যে হয়ে থাকে। এখন একটা brute-force নামের একটা অ্যাটাক আছে যেটার মধ্যমে পাসওয়ার্ড হ্যাক করা যায় এটাকে ডিকশনারি অ্যাটাকও বলে। এর কাজটা হচ্ছে ১-৭ টা ডিজিটের মধ্যে key থাকে, সে প্রত্যেকটা key ডিজিট এক এক করে try করবে।

এখন আপনি ভেবে দেখুন ১-৭ পর্যন্ত কত সমাহার হতে পারে এবং সব গুলো ট্রাই করতে আমরা নরমালই যে কম্পিউটার ব্যবহার করি যে স্পিড আছে ১-৭ পর্যন্ত সব গুলো key যদি ট্রাই করতে যাই বছরেও সম্ভ্যব কি না আমার সন্দেহ আছে, সো সেটাতেও পসিবল না। এখন আপনের ভাগ্য যদি খুব ভাল থাকে তার সিকিউরিটি পিন যদি ছোট হয় তাহলে আপনি brute-force এর মাধ্যমে আপনি পেয়ে যেতে পারেন তবে সময় কতটা লাগবে সেটা অজানা।

তাই আমি আপনাদের বলতে চাই যারা ইউটিউব এবং গুগলে সার্চ করছেন, কিভাবে পাসওয়ার্ড হ্যাক করব? এভাবে WiFi Hacking এর পদ্ধতি বেড় করে ওয়াইফাই হ্যাক করা সম্ভব না।

তো আমি আপনের বলব এই সময়টা নষ্ট করবেন না, ওয়াইফাই হ্যাক করতে পারবেন না এভাবে। যদি WiFi Hacking নিয়ে কোনো প্রশ্ন থাকে তাহলে আমাকে কমেন্টের মাধ্যমে জানান।

ধন্যবাদ!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here